29 C
Kolkata
Sunday, May 16, 2021

West Bengal Election 2021: শেষ বেলার প্রচার জমজমাট পাহাড় থেকে সমতল! হেভিওয়েট প্রচারে মমতা, রাহুল, মিঠুন

Must read

#শিলিগুড়ি: শেষ দিনের প্রচার ছিল জমজমাট। পাহাড় থেকে সমতল, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রচার ছিল তুঙ্গে। কোথাও হেভিওয়েট প্রচার। আবার কোথাও প্রার্থীরা ছুটে বেড়ালেন এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায়। একে অপরকে ছাপিয়ে যাওয়ার লড়াই। ভোট যুদ্ধে কেউই এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে নারাজ। আগামী ১৭ এপ্রিল পঞ্চম দফায় ভোট হবে দার্জিলিং, কালিম্পংয়-সহ আরও কয়েকটি জেলায়।

আজ শিলিগুড়ির মাটিগাড়ায় ছিল হেভিওয়েট প্রচার। একদিকে জনসভা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। যেখানে উত্তরের হারানো জমি পুনরুদ্ধারে দলীয় কর্মী, সমর্থকদের চাঙ্গা করার দাওয়াই দিয়ে গেলেন তিনি। এই কেন্দ্রেই প্রচার সারলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। রাজ্যে ভোট প্রচারে এটাই ছিল তাঁর প্রথম সফর। রাজ্য দখল করতে মরিয়া গেরুয়া শিবির যেখানে প্রতিদিনই প্রচারে ভিড় জমাচ্ছে হেভিওয়েটদের। সেখানে রাহুলের এটাই ছিল প্রথম প্রচার।

তিনি আগাগোড়া আক্রমণ করে গেলেন প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে। জনসভায় যোগ দেন জোটসঙ্গী বাম কর্মী, সমর্থকেরাও। থেমে নেই বিজেপিও। আজ শেষ বেলায় শিলিগুড়ির ফাঁসিদেওয়ায় জনসভা করেন “মহাগুরু” মিঠুন চক্রবর্তী। কেন রাজ্যে পরিবর্তন জরুরি এবং বিজেপি ক্ষমতায় এলে কী কী কাজ করবে তা তুলে ধরেন। অন্যদিকে শিলিগুড়ি কেন্দ্রে এবারে লড়াই ত্রিমুখী। সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী সিপিএমের অশোক ভট্টাচার্য দিনভর ব্যস্ত রাখলেন শেষ বেলার প্রচারে। এক ওয়ার্ড থেকে অন্য ওয়ার্ডে প্রচারের ফাঁকে যান বিধান মার্কেটেও।

তৃণমূল প্রার্থী ওমপ্রকাশ মিশ্রও ছিলেন প্রচারে ব্যস্ত। বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডে দলীয় কর্মী, সমর্থকদের নিয়ে ভোট প্রচার করেন। বিজেপি প্রার্থীও সকাল থেকে ছিলেন প্রচারমুখী। তিনিও একাধিক ওয়ার্ডে প্রচার সারেন। প্রচার জমজমাট ছিল পাহাড়েও। পাহাড়ের তিন আসনে শেষ বেলায় আসরে নামেন বিমল গুরুং, রোশন গিরিরা। দার্জিলিংয়ে জনসভা করে গুরুংপন্থী মোর্চা। সেখান থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে আক্রমণ শানান বিমল গুরুং। বিকেলে কালিম্পংয়ে রোড শো করেন গুরুং। পিছিয়ে ছিলেন না বিনয়পন্থী মোর্চাও। সকালে কালিম্পং এবং বিকেলে দার্জিলিংয়ে নির্বাচনী প্রচার সারেন বিনয় তামাং, অনীত থাপারা। এবারে পাহাড়ে একাই লড়ছে বিনয়পন্থীরা। যেখানে গুরুংদের পাশে রয়েছে তৃণমূলের পার্বত্য শাখা। আর বিজেপির সঙ্গে রয়েছে জিএনএলএফ, সিপিআরএম সহ পাঁচটি আঞ্চলিক দল। তিন শিবিরই একে অপরকে প্রচারে দিল টেক্কা!



Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article