24 C
Kolkata
Wednesday, May 12, 2021

Mamata Banerjee: ‘বুলেটের বদলা চাই ব্যালটে, আমি রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার’, তীব্র হুঙ্কার আগ্রাসী মমতার

Must read

#রাজগঞ্জ: শনিবার চতুর্থ দফার ভোটগ্রহণ চলাকালীন কোচবিহারের শীতলকুচি বিধানসভার অন্তর্গত মাথাভাঙায় একটি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে ৪ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। রবিবার ম্যারাথন ভোট প্রচারে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন সভা থেকে বিজেপিকেই এই ঘটনার জন্য দায়ী করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাতে নির্বাচন কমিশন জানায়, আগামী ৭২ ঘণ্টা কোনও রাজনৈতিক নেতা কোচবিহারে ঢুকতে পারবেন না। সেই নির্দেশ ঘিরে কমিশনকে সভা থেকে কটাক্ষ করেন মুখ্যমন্ত্রী।

রাজগঞ্জের সভা থেকে সরাসরি নাম করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে আক্রমণ করেন মমতা। তাঁর কথায়, ‘মানুষ যখন ভোট দিতে যাচ্ছে, ভোট গণতন্ত্রের সবচেয়ে বড় উৎসব, সেখানে মুখ বন্ধ, ভোট বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। শীতলকুচিতে ২০-২৫ বছর বয়সের ৪ জনকে মেরে ফেলা হয়েছে ভোটের লাইনে। আমাকে যেতে দেওয়া হল না। ৭২ ঘণ্টা যেতে দেওয়া হল না। পরিবারের সঙ্গে কথা বলতাম। আমি রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। কোথায় আটকাবে আমাকে? নরেন্দ্র মোদি ক্লিনচিট দিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চক্রান্ত করেছে এই পুরো ঘটনায়। হেরে গিয়েছে বলেই এখন বোমা চালাচ্ছে, গুলি চালাচ্ছে।’

মাথাভাঙাকাণ্ডের প্রতিবাদে এবং অমিত শাহের পদত্যাগের দাবিতে এদিন রাজ্যজুড়ে ‘কালো দিবস’ পালন করছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেই প্রতিবাদে সামিল হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও। এদিন প্রতিটি সভায় তাঁর সাদা শাড়ির উপর একটি কালো চাদর গলায় পরে বসেছিলেন মমতা। মাথাভাঙাকাণ্ডের ঘটনার উল্লেখ করে রাজগঞ্জ থেকে মমতার হুঙ্কার, ‘গুলির দাম বেশি না ব্যালটের? বুলেটের বদলা চাই ব্যালটে। খেলা হবে মনে রাখবেন। আমরা বদলা নেব। অমিত শাহের পদত্যাগের দাবিতে কালো দিবস হচ্ছে রাজ্যজুড়ে। আমার কাছে ভিডিও আছে। চ্যালেঞ্জ করে বলছি ওদের পার্টির লোকেরা নির্দেশ দিয়েছে বুকে গুলি করতে। হযবরল, যাকে খুশি তাকে দায়িত্ব দিয়ে রেখেছে ভোট সামলানোর। এটা লজ্জা।’

রবিবার সকালে সাংবাদিক বৈঠক থেকে ভিডিয়ো কলের মাধ্যমে শীতলকুচির নিহতদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরিবারের অভিযোগ শোনেন তিনি। অভিযোগ শোনার পর মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যা বিচার চাওয়ার চাইব।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি যে ভাবে পারি সাহায্য করব। ওখানে গিয়ে আপনাদের সঙ্গে দেখা করব। যা বিচার চাওয়ার চাইব। যিনি মারা গিয়েছেন, তাঁকে তো ফেরাতে পারব না। তবে আমরা ওঁদের পরিহারকে সাহায্য করব। আমি ১৪ তারিখ যাওয়ার চেষ্টা করছি। তখন দেখা করব।’



Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article