France announces curfew amid second wave of COVID-19 cases | SangbadPratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হয়েও হল না শাপমুক্তি। লাগাতার নিম্নমুখী মৃত্যুর হার ও সংক্রমণে ভাটা ফরাসি জনগণের মনে কিছুটা করোনামুক্তির আশা জগিয়েছিল। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কায় ফের দেশজুড়ে জনস্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি অবস্থা জারি করল ফ্রান্স।

[আরও পড়ুন: পাকিস্তানে ফের ভাঙা হল মন্দির, হিন্দুদের উপর অত্যাচারের নিন্দা মানবাধিকার সংগঠনগুলির]

সংবাদমাধ্যম Sputnik সূত্রে খবর, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ জানিয়েছেন, দেশের ৯টি শহরে রাত ন’টা থেকে ভোর ছ’টা পর্যন্ত কারফিউ জারি থাকবে। স্থানীয় সময় শনিবার থেকে চালু হবে এই নাইট কারফিউ, চলবে অন্তত ৪ সপ্তাহ। এই ৬টি শহর হল, ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস, গ্রেনোবাইল, লিলি, লিয়ঁ, আইক্স-মার্শেই, সেন্ট এটিনে, টিউলস, আইল-ডে-ফ্রান্স এবং মন্টপেলিয়ার। যদি কেউ এই কারফিউ ভঙ্গ করেন তবে তাঁকে ১৩৫ ইউরো জরিমানা দিতে হবে।

করোনা নিয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, “দেশে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। তবে পরিস্থিতির উপর আমরা নিয়ন্ত্রণ হারাইনি। আমরা উদ্বিগ্ন হলেও প্রথম দফার সংক্রমণ থেকে অনেকটাই শিক্ষা নিয়েছি। বিগত ৮ মাস ধরে এই মহামারী চলছে। এবার ফের সংক্রমণ বাড়ছে।”

উলেখ্য, গত জুলাই মাস থেকে ফ্রান্সে ফের বাড়তে শুরু করে করোনা আক্রনাতের সংখ্যা। অক্টোবরের ১০ তারিখ সর্বোচ্চ ২৭ হাজার জন করোনা আক্রান্ত হন ওই দেশে। গত ৬ দিনে তৃতীয়বার এ দেশে প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্যা ২০ হাজার পেরিয়ে গিয়েছে। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৮ লক্ষ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ১০৪ জন, সব মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা ৩৩,০৩৭। ফ্রান্স নবম দেশ, যেখানে করোনায় মৃত্যু ৩৩,০০০ ছাড়াল।

এ সপ্তাহের শুরুতে ফরাসি প্রধানমন্ত্রী জাঁ কাসটেক্স হুঁশিয়ারি দেন, দেশে হু হু করে ফিরে এসেছে করোনা, স্ট্রং সেকেন্ড ওয়েভ শুরু হয়েছে, ঢিলেমি করার কোনও উপায় নেই। আগামী ২ সপ্তাহে দরকারে আরও কড়াকড়ি শুরু হতে পারে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: নিশানায় ভারত না তাইওয়ান? লালফৌজকে যুদ্ধের জন্য তৈরি থাকার নির্দেশ জিনপিংয়ের]

Leave a Comment

%d bloggers like this: