24 C
Kolkata
Wednesday, May 12, 2021

১০ বছরের বাচ্চার দাঁত এতটাও বড় হয়! দেখে আবার শিউরে উঠবেন না!

Must read

#কানাডা: দুধের দাঁত বাচ্চা বয়সে সকলেরই পড়ে। আমরা অনেকেই তা বিছানার তলায় রেখে দিই স্মৃতি হিসেবে, অনেকে আবার বাড়িতে সংরক্ষণও করি তা পরে মনে রাখার জন্য। কিন্তু বাঙালিদের মধ্যে ইদুরের গর্তে দাঁত দেওয়ার রীতি আছে। আমার দাঁত তুমি নাও, তোমার দাঁত আমায় দাও এই বলে গর্তে ফেলা হয়, যাতে ইদুরের মতো সূক্ষ্ম, তীক্ষ্ম ও ছোট ছোট দাঁত পাওয়া যায়। এই বিষয়টির বৈজ্ঞানিক ভিত্তি না থাকলেও গ্রাম বাংলায় আজও অনেকে এমন রীতি মেনে থাকে। কিন্তু কানাডার এক বাচ্চা ইদুরের গর্তে দাঁত দেওয়া বা দাঁত রেখে দেওয়া নয়, দাঁতের সাহায্যে স্থান করে নিয়েছে গিনেস রেকর্ড।

পিটারবুর্গের লিউক বলটন, গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নিজের নাম তুলে নিয়ে এখন তার দুধের দাঁতকেই ধন্যবাদ জানাচ্ছে। কেন এই রেকর্ড?

আর পাঁচটা বাচ্চার মতোই দুধের দাঁত পড়েছিল তার। বাচ্চা হওয়ায় দুধের দাঁত সকলেরই ছোট হয়। কিন্তু লিউকের দাঁতের আকার অন্যান্যদের দাঁতের থেকে অনেক বড়। যার মাপ ২.৬। আর সে কারণে তার নাম উঠেছে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে।

তার এই দাঁতটি তোলেন চিকিৎসক ক্রিস ম্যাক আর্থার। লিউকের ৮ বছর বয়সে দাঁতটি তোলা হয়।

গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, লিউক প্রথমে দাঁতটি রেখেছিল সকলকে দেখানোর জন্য। তার বাবা ক্রেগ বলটন PTBO কানাডাকে জানান, প্রথমে দেখেই মনে হয়েছিল এই দাঁতটা কারও মুখের ভিতর থাকতে পারে? আসলে ওর ওই দাঁতটা পরে ওঠা একটা দাঁতের পিছনে থেকে গিয়েছিল। তাই তুলে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

দাঁত তোলার সময়ে লিউকের দিদির দাঁতটি দেখে মনে হয়েছিল এটি ওয়ার্ল্ড রেকর্ড তৈরি করতে পারে। এই পুরো বিষয়টা হতে ১২ সপ্তাহের বেশি সময় লেগেছে। ভিডিওয় প্রমাণ দিতে হয়েছে। ছোট একটা বায়োগ্রাফি দিতে হয়েছে। পরে সেখান থেকে রেকর্ডের বিষয়টি জানানো হয়।

রেকর্ড করার পর থেকে লিউক খুবই জনপ্রিয় নিজের স্কুলে। স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে বিষয়টি সকলের সামনে ঘোষণা করা হয়। সে জানিয়েছে, নতুন কোনও রেকর্ডের জন্য এবার চেষ্টা করবে।

প্রসঙ্গত, এর আগে এই রেকর্ড ছিল কলম্বাসের কার্টিস ব্যাডির। সে ২০১৯ সালে ২.৪ সেন্টিমিটার লম্বা দুধের দাঁতে রেকর্ড করেছিল।



Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article