31 C
Kolkata
Friday, May 7, 2021

হাবরায় সরকারি জায়গায় কেন অমিত শাহের পোস্টার-ব্যানার! অবস্থান বিক্ষোভে তৃণমূল

Must read

রাজর্ষি রায়

#হাবরা: অমিত শাহের রোড শোয়ের আগেই রাজনৈতিক উত্তাপে উতপ্ত হাবরা। রবিবার  বিকালে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের রোড শো ছিল হাবরায়। এই শহরের দেশবন্ধু পার্ক থেকে জয়গাছি মোড় পর্যন্ত রোড শো করছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য তথা প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহা হাবরায় এ বার বিজেপির প্রার্থী। একদিকে রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী তথা উত্তর ২৪ পরগণা জেলা তৃণমুল কংগ্রেসের সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক তো অন্যদিকে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা রাহুল সিনহা এ বারের ভোটে সামনাসামনি লড়াই। দুই হেভিওয়েট নেতার লড়াই ইতিমধ্যে হাবরা এক নজরকাড়া কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে।

ভোটের লড়াইয়ে কেউ সমান্য পিছিয়ে থাকতে চান না। শিতলকুচির গুলি কান্ড নিয়ে বেফাঁস মন্তব্যে নির্বাচন কমিশন ৭২ ঘণ্টার জন্য রাহুল সিনহাকে ভোট প্রচারে ব্যান করেছিল।সেই সময় নিজেকে প্রচারের আলো ভাসিয়ে রাখতে বাজারের ব্যাগ হাতে কখন বাজার করেতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। আবার সেই দিন বিকালে লাঙ্গল হাতে নিয়ে মাটি চষেছেন তিনি।

সেই রাহুল সিনহার হয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের রোড শো হল হাবরায়। বড় বড় কাটআউট, ব্যানার পোস্টার, ঝকঝকে ফ্লেক্সে বিজেপির সংকল্প পত্র। এক প্রকার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের রোড শো’কে ঝকঝকে প্যাকেজে উৎসবের চেহারা দেওয়ার কোনও চেষ্টার খামতি রাখেনি বিজেপি শিবির। আর এখানেই আপত্তি যুযুধান তৃণমুল কংগ্রেসের শিবিরের। তাঁদের প্রার্থী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক অনুগামীদের নিয়ে হাবরা বিডিও অফিসে অবস্থান বিক্ষোভে বসেন। তাঁর দাবি, নির্বাচন কমিশনের আ্যপে গিয়ে অভিযোগ জানিয়ে কোনও লাভ হচ্ছে না। তাই ভোট প্রচারের শেষ লগ্নে প্রচার ছেড়ে অবস্থানে বসতে তিনি বাধ্য হয়েছেন। তাঁর দাবি, ভোট চলাকালীন সরকারি কোনও জায়গায় রাজনৈতিক দলের পোস্টার ব্যানার বা ফ্লেক্স লাগানো নিয়মবিরুদ্ধ। কিন্ত অমিত শাহের রোড শো বলে যশোর রোডের দু’ধারে কেন্দ্রীয়  স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর ব্যানার, ফ্লেক্সে ছয়লাপ করে দেওয়া হয়েছে।

তৃণমুল প্রার্থীর দাবি হাবরা শহর থেকে সব রাজনৈতিক দলের ব্যানার পোস্টার খুলতে হবে প্রশাসনকে। একই সঙ্গে এই দিন হুমকির সুরে বিজেপিকে সাবধান হতে বলেন। তিনি বলেন চাইলে অমিত শাহকে হাবরায় আমি নামতে নাও দিতে পারি। সেটা করছি না। কিন্তু ওরা(বিজেপি) যা করছে তার পরিণাম ভয়ঙ্কর হবে বলে তিনি হুমকি দেন। তাঁর দাবি, প্রশাসন কথ না শুনলে জেলা শাষকের দফতরেও প্রয়োজনে ধর্নায় বসবে তাঁর দলের কর্মীরা।



Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article