শিক্ষকের মুণ্ডচ্ছেদ, ইসলামিক সন্ত্রাসী হামলা, বললেন ফরাসী প্রেসিডেন্ট

নিজস্ব প্রতিবেদন: তিন সপ্তাহে দ্বিতীয়বার। সন্ত্রাসী হামলায় ফের রক্তাক্ত ফ্রান্স। প্যারিসের শহরতলির রাস্তায় মুণ্ডচ্ছেদ করা হল ইতিহাসের শিক্ষককে। পুলিসের গুলিতে খতম হয়েছে হামলাকারী। ফরাসী প্রেসিডেন্ট এমানুল মাকরেঁর কথায়,”এটা ইসলামিক সন্ত্রাসী হামলা।”

শ্রেণিকক্ষে মহম্মদের একটি ব্যঙ্গচিত্র নিয়ে আলোচনা করেছিলেন ওই শিক্ষক। তাঁর খুনের ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে ফরাসী পুলিস। এক নাবালক-সহ আরও ৪ অভিযুক্তকে আটক করা হয়েছে। পুলিস জানিয়েছে, সন্দেহভাজনের হাতে ছিল ছুরি। অন্য হাতে এয়ারসফট গান। এয়ারসফট গানে প্লাস্টিক গুলি ব্যবহার করা হয়। ওই শিক্ষককে ৬০০ মিটার দূর থেকে হত্যা করা হয়েছে। সন্ত্রাসবিরোধী দলের অফিসার জিন ফ্র্যাঙ্কোস রিচার্জের কথায়, ”সন্দেহভাজনের সঙ্গে কাদের যোগ ছিল, তা খুঁজে দেখা হচ্ছে।”             

স্কুলটি পরিদর্শন করেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুল মাকরঁ। কথা বলেন কর্মীদের সঙ্গে। তিনি বলেন,”আমাদের এক সহনাগরিককে হত্যা করা হয়েছে। কারণ তিনি মতপ্রকাশের স্বাধীনতার শিক্ষা দিতেন। বিশ্বাস ও বিশ্বাসের স্বাধীনতার শিক্ষা। এই হামলার ঘটনায় ফ্রান্সে কখনই বিভেদ ছড়ানো উচিত নয়, কারণ এটাই চায় ওরা।” ইসলামিক মৌলবাদ রুখতে একটি বিল আনার পরিকল্পনা করেছে ফরাসী সরকার।

২০১৫ সালে মহম্মদের ব্যঙ্গচিত্র ছাপায় হামলার মুখে পড়েছিল শার্লি এবদো ম্যাগাজিন। ওই ব্যঙ্গচিত্র ছাপিয়েই ফের খুলেছে শার্লি এবদো। তারপর ২৫ সেপ্টেম্বর ম্যাগাজিনের অফিসের বাইরে ছুরি নিয়ে সংস্থার দুই সাংবাদিকের উপরে হামলা চালায় এক পাকিস্তানি নাগরিক। ১৮ বছরের ওই যুবক দাবি করেছে, ব্যঙ্গচিত্রটি তাঁর ভাবাবেগে আঘাত করেছে। 

আরও পড়ুন- রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল ভারতে, মিলল অনুমতি

Leave a Comment

%d bloggers like this: