29 C
Kolkata
Sunday, May 16, 2021

রাজ্যে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে আরও কিছু পরিষেবায় ছাড় –

Must read

কলকাতা : রাজ্যে করোনার (Coronavirus) সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কা সামলাতে রাজ্য প্রশাসনকে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। তাই ভোট শেষ হতে না হতেই কড়া নিয়ম জারি করে রাজ্য জুড়ে আংশিক লকডাউন ডেকে দিয়েছে রাজ্যে প্রশাসন । এর ফলে বাজার, দোকান, জনগণের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে ব্যাপকভাবে । শুক্রবার বিকেলে নবান্ন থেকে বিশেষ বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছে নয়া নিয়মের কথা। বন্ধ হয়েছে শপিংমল, সিনেমাহল, রেস্তরাঁ, পার্লার, সুইমিং পুল, জিম। ওষুধের দোকান ও অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবায় ছাড় ছিল এই নির্দেশিকায় । তবে শনিবার বিকেলে আরও একদফা বিজ্ঞপ্তি জারি করে আরও কয়েকটি পরিষেবায় ছাড় (Relaxation) দেওয়ার কথা ঘোষণা করল রাজ্য প্রশাসন।

কী রয়েছে নতুন নির্দেশিকায়?

নতুন নির্দেশিকায় বলা হয়েছে রাজ্যে খোলা থাকবে টেলিকম, বৈদ্যুতিন সরঞ্জামের দোকান। সবজি, মাংস, মিষ্টি ও দুধের দোকান খোলা থাকবে। দুধ সরবরাহে কোনও বাধা নিষেধ থাকছে না। পরিবহণ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যকেন্দ্র খোলা থাকবে। এছাড়াও বিয়েবাড়ি কিংবা কোনও অনুষ্ঠান বাড়িতে ৫০ জন অতিথি সমাগমে বাধা থাকছে না। শুক্রবারের বিজ্ঞপ্তিতে এসব অনুষ্ঠান সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়ার কথা জানানো হয়েছিল। শনিবার মুখ্যসচিব আরেকটি বিজ্ঞপ্তি দিয়ে নতুন করে উল্লিখিত বিষয়গুলিকে ছাড়ের আওতায় আনার কথা ঘোষণা করলেন।

তবে শুক্রবার রাজ্য প্রশাসনের তরফে যে নির্দেশিকা জারি জারি করেছিল তাতে শনিবার সকালে সাতটা থেকে ১০টা পর্যন্ত খোলা থাকার কথা বলা হলেও সেটা মানা হয়নি। শিয়ালদার কোলে মার্কেট ১০টার সময় শনিবার বন্ধ তো হয়নি উল্টে সারা দুপুর সেখানে কেনাবেচা হয়েছে। রাজ্য প্রশাসনের তরফে বলা হয়েছে অল্প সময়ের মধ্যে নির্দেশিকা জারি করার জন্য শনিবার সর্বত্র সঠিকভাবে নির্দেশিকা কার্যকর হয়নি। এছাড়াও শনিবার যে বিষয়গুলি ছাড়ের মধ্যে আনা হয়েছে সেগুলিও শুক্রবার নির্দেশিকায় ছিল না। তাই পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে নতুন নির্দেশিকা জারি করা হল। আসলে প্রথম দিনের নির্দেশিকায় নির্দিষ্ট করে বেশ কিছু ক্ষেত্রে কথা বলা ছিল না। তাই মানুষের মধ্যে সন্দেহের জায়গা তৈরী হয়েছিল। এই সন্দেহ নিরসনে রাজ্য সরকার শনিবার নতুন নির্দেশিকা জারি করল।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article