মণীশ খুনের কিনারা করতে তৎপর সিআইডি, ঘটনাস্থলে ফরেন্সিক দল – Sangbad | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal’s Leading online Newspaper

প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগনার টিটাগড়ে বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লা খুনের কিনারা করতে তৎপর সিআইডি৷

এই খুনের ঘটনায় ইতিমধ্যেই সি আই ডির হাতে ধরা পড়েছে ২ অভিযুক্ত, খুররম খান ও গুলাম শেখ । তাদের ১৪ দিনের জন্য নিজেদের হেফাজতে নিয়ে তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে সি আই ডি।

মঙ্গলবার এই ঘটনায় ২ অভিযুক্তকে রাতভর জেরা করেছে তদন্তকারী সি আই ডি অফিসাররা । বুধবার সকালে ধৃত খুররম ও গুলাম শেখকে সঙ্গে নিয়ে বেরিয়ে পড়ে সি আই ডির এক প্রতিনিধি দল । তদন্তকারী আধিকারিকদের প্রাথমিক অনুমান মণীশ খুনে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত খুররম খান । এই খুররম খানের বাবাকে কয়েক বছর আগে তার বাড়ির সামনে হত্যা করা হয়েছিল । তারই প্রতিশোধ নিয়ে মণীশ শুক্লা খুনের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে, এরকমই প্রাথমিক ধারনা সি আই ডির ।

তবে মণীশ খুনের ঘটনায় অন্য সব দিক খোলা রেখেই তদন্ত করছে সি আই ডি কর্তারা । এই খুনের ঘটনায় দুষ্কৃতীদের ইনফরমার হিসেবে জড়িত সন্দেহে নাসির নামে এক ব্যাক্তিকে আটক করে সি আই ডি কর্তারা জেরা করছে বলে সূত্রের খবর ।

এদিকে সি আই ডি সূত্রে জানা গিয়েছে, বারাকপুর পুরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের পঞ্চানন তলা এলাকায় একটি নির্মীয়মাণ বহুতলে বসে এই হত্যার ছক কষেছিল দুষ্কৃতীরা । ওই নির্মীয়মাণ আবাসনের মালিককেও সন্দেহের তালিকায় রেখেছে সি আই ডি । রবিবার রাতে বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লাকে টিটাগড় থানার সামনে বাইকে করে এসে দুষ্কৃতীরা গুলিতে ঝাঁঝরা করে খুন করে ।

আরও জানা গিয়েছে, মনীশের শরীরে ৭ টি বুলেট লেগেছিল । মাথাতে লেগেছিল ৩ টি গুলি । এই ঘটনা যেখানে ঘটেছিল, সেই ঘটনাস্থল টিটাগড় থানার পুলিশ ঘিরে রেখেছিল। বুধবার বিকেলে সেই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় ফরেন্সিক দল । ৩ সদস্যের ফরেন্সিক দলের সদস্যরা পিপিই কিট পরে খুন হওয়া সেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে নমুনা সংগ্রহ করে ।

তাঁরা জানান, শীঘ্রই তাঁরা নির্দিষ্ট রিপোর্ট জমা দেবে তদন্তকারী সংস্থার হাতে । এদিকে মণীশ শুক্লা খুনের ঘটনায় রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তোলা হয়েছে বিজেপির পক্ষ থেকে । যদিও তৃণমূল বলছে বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দলের কারণে মণীশ শুক্লাকে খুন হতে হয়েছে ।

বিজেপির পক্ষ থেকে মণীশ খুনের ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি করা হয়েছে, তবে সি আই ডি তদন্তে পূর্ণ আস্থা আছে তৃণমূল নেতৃত্বের । রবিবার এই খুনের ঘটনা ঘটলেও এই ঘটনায় কোনও রাজনৈতিক নেতা এখনো পর্যন্ত গ্রেফতার হয়নি। প্রাথমিক ভাবে এখনও পর্যন্ত সি আই ডির অনুমান, ব্যাক্তিগত পুরনো শত্রুতার কারণে এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। তবে রাজনৈতিক শত্রুতার বিষয়টাও উড়িয়ে দিচ্ছে না তদন্তকারী সংস্থার কর্মীরা। সি আই ডি সূত্রের খবর, সব দিক খোলা রেখেই তদন্ত প্রক্রিয়াকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।

Leave a Comment

%d bloggers like this: