24 C
Kolkata
Wednesday, May 12, 2021

মডার্নার টিকাকে জরুরিভিত্তিতে ছাড়পত্র দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা –

Must read

ওয়াশিংটন: জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের জন্য কোভিড টিকার তালিকায় মডার্নার তৈরি টিকাকে অন্তর্ভুক্ত করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এর ফলে চাইলে বিশ্বের যে কোনও দেশ যে কোনও সময় মডার্নার কোভিড টিকা ব্যবহার করতে পারবে। এমনকি সেই টিকা নিয়ে অর্থনৈতিক ভাবে পিছিয়ে পরা অন্য দেশগুলিকেও তা দিতে পারবে।এটা নিয়ে বিশ্বের মোট ৫টি কোভিড টিকাকে জরুরি ব্যবহারের তালিকাভুক্ত করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ২০২০ সালের ১৮ ডিসেম্বর ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলিতে মডার্না-র টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছিল। এবং ওই টিকাকে ইউরোপের দেশগুলিতে বাণিজ্যিক ভাবে চালু করার অনুমোদন এফডিএ দেয় এ বছরের ৬ জানুয়ারিতে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তাদের বিশেষজ্ঞ কমিটি দেখেছে মডার্না-র টিকার কার্যকারিতা ৯৪.১ শতাংশ। তাই এই টিকাকে বিশ্বের সব দেশেই জরুরি ব্যবহারের ছাড়পত্র দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জরুরি ব্যবহারের জন্য ফাইজার বায়োটেক, অ্যাস্ট্রাজেনেকা, ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট এবং জনসন-এর টিকাকে অনুমোদন দিয়েছিল। বৃহস্পতিবার মডার্না এক বিবৃতিতে বলেছে যে, তারা আশা প্রকাশ করছে যে, ২০২২ সালে তিন বিলিয়ন ডোজ তারা উৎপাদন করতে সক্ষম হবে। ইউরোপ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে দ্রুত সরবরাহের ব্যবস্থা করবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অনুমোদন দেওয়ায় আমেরিকার সংস্থা ‘মডার্না’র তৈরি কোভিড টিকা ভারতে আসার সম্ভাবনা তৈরি হল। অপরদিকে আজ ভারতে এসে পৌঁছালো করোনার তৃতীয় প্রতিষেধক তথা প্রথম বিদেশি ভ্যাকসিন স্পুটনিক-ভি। এর আগে গত জানুয়ারি থেকে দেশজুড়ে টিকাকরণের কাজ শুরু হলেও প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সিন দেওয়া হচ্ছিল। যেগুলি দুটিই এদেশে তৈরি।

অপরদিকে, পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লক্ষ ১ হাজার ৯৯৩ জন। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ৯১ লক্ষ ৬৪ হাজার ৯৬৯ জন। করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়ে গিয়েছে সাড়ে তিন হাজার। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার বলি হয়েছেন ৩ হাজার ৫২৩ জন।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article