‘তৃণমূলের দুই সম্মানীয় নেতা ফোন করেছিলেন’, তাৎপর্যপূর্ণ দাবি রাহুল সিনহার – Sangbad | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal’s Leading online Newspaper

ফাইল ছবি

কলকাতা: বিজেপি নেতা রাহুল সিনহাকে তৃণমূলের দুই শীর্ষ স্থানীয় নেতা ফোন করেছিলেন। আগামী দিনে তাঁর রাজনৈতিক পরিকল্পনা সম্পর্কে তাঁরা জানতে চেয়েছিলেন। শুক্রবার এমনই দাবি করেছেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। যদিও শাসকদলের ওই দুই নেতার নাম প্রকাশ্যে আনেননি রাজ্য বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি। সৌজন্যতার খাতিরেই তৃণমূলের ওই দুই নেতা তাঁকে ফোন করেছিলেন বলে জানিয়েছেন রাহুল সিনহা।

দিন কয়েক আগেই বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদকের পদ খুইয়েছেন রাহুল সিনহা। অমিত শাহ-জেপি নাড্ডাদের এই সিদ্ধান্তে স্বভাবতই বেশ হতাশ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। এমনকী প্রকাশ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় দলের বিরুদ্ধে অভিমানের সুরই শোনা গিয়েছে তাঁর গলায়।

৪০ বছর ধরে বিজেপিতে যুক্ত থাকার ‘পুরস্কার’ পেয়েছেন বলে দাবি করেছিলেন রাহুল সিনহা। এমনকী তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যাওয়া নেতাদের জায়গা করে দিতেই তাঁকে পদ হারাতে হয়েছে বলেও দাবি করেন রাহুল।

নাম না করে মুকুল রায়, অনুপম হাজরাদের বিরুদ্ধেই সরব হন রাহুল সিনহা। বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব বড়সড় পদ দিয়েছেন মুকুল রায়কে। দলের সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি করা হয়েছে তাঁকে।

শুধু মুকুল রায়ই নন, প্রাক্তন তৃণমূলের সাংসদ অনুপম হাজরাকেও দলের জাতীয় সম্পাদক করেছে গেরুয়া শিবির। কেন্দ্রীয় সম্পাদকের পদ খোয়ানোর দিনেই রাহুল জানান, কয়েকদিনের মধ্যেই তাঁর পরবর্তী পরিকল্পনা তিনি জানাবেন।

শুক্রবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে রাহুল সিনহা বলেন, ‘‘তৃণমূলের দুই সম্মানীয় নেতা পৃথক-পৃথক ভাবে ফোন করেছিলেন। আগামীদিনে আমার কী ভাবনা তা জানতে ফোন করেছিলেন। সৌজন্য রক্ষায় ফোন করেছিলেন। বহু মানুষ ও রাজনৈতিক দলের নেতারাও ফোন করেছিলেন।’’

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব ‘দশভূজা’য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।

Leave a Comment

%d bloggers like this: