31 C
Kolkata
Thursday, May 6, 2021

গণনা চলছে: বঙ্গে চূড়ান্ত ফ্লপ হচ্ছে বাম, কেরলে বলীয়ান – Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal’s Leading online Newspaper

Must read

কলকাতা ও তিরুঅনন্তপুরম: দলে আধুনিকীকরণের ছোঁয়ার দীর্ঘ চেষ্টায় অবশেষে দু দশকের বেশি সময় পরে কেরলে পরিবর্তন রুখতে পারছে সিপিআইএম তথা এলডিএফ জোট। বিরোধী ইউডিএফ তথা কংগ্রেস বিরোধী থাকছে বলে যা দেখানো হয়েছিল এক্সিট পোলে সেরকমই ফল আসছে। যদিও গণনা চলছে।

অন্যদিকে দশ বছর আগে যে বাম শক্তি বঙ্গভূমি থেকে বিদায় নিয়েছিল তার পতন চূড়ান্ত হয় গত লোকসভা ভোটে। একটিও আসন বামেরা পাননি। বিধানসভার ভোটে গণনার ইঙ্গিত, বামেরা ফ্লপ। যদিও তাদের নতুন তরুন তুর্কিদের উত্থান হয়েছে। অন্যদিকে কেরলে বাম শক্তি বলীয়ান হলো।

ফলাফলের গতিতে ইঙ্গিত, পর্যটন দুনিয়ার অন্যতম ক্যাচলাইন ‘ভগবানের দেশ’ কেরলে শিবরাত্রির সলতে হয়ে টিকে থাকল সিপিআইএম। করোনা মোকাবিলায় এই রাজ্যের সরকারের ভূমিকা আন্তর্জাতিকস্তরে প্রশংসিত। কিন্তু করোনা মোকাবিলায় পথে নেমে সাহায্যের চমক দিলেও পশ্চিমবঙ্গবাসী ভোট মেশিনে সিপিআইএমকে শেষ করে দিতে চলেছেন। ইতিমধ্যেই বিশ্লেষণে উঠে আসছে রাজ্যে নো ভোট টু বিজেপি প্রচার। ফলে ক্ষয়িষ্ণু বামেরা যে বিজেপি বিরোধী অবস্থান নিয়েছিল তাতে আস্থা না রেখে তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের বিজেপি বিরোধী অবস্থানেই ভরসা রাজ্যবাসীর। যদিও ভোটের আগে বিজেপির অপারেশন লোটাসে সর্বাধিক ক্ষতিগ্রস্থ হয় টিএমসি শিবির।

একইভাবে কেরলে যুযুধান সিপিআইএম ও কংগ্রেসের মধ্যে পড়ে বিজেপি দিশাহারা। ঠিক পশ্চিমবঙ্গে বাম শক্তির মতো হাল কেন্দ্রের ক্ষমতায় থাকা দলটির। কেরলবাসী শাসক সিপিআইএম ও বিরোধী কংগ্রেসে বিভক্ত হয়েই থাকছেন। তবে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় নজির গড়ে নতুন বিরোধী শক্তি হতে চলেছে বিজেপি। এখানেই প্রশ্ন, ফলাফলের এমন গতি বজায় থাকলে জয়ী বিজেপি সদস্যরা কতজন দলে থাকবেন। যেভাবে টিএমসি ছেড়ে বিজেপি গমণ হয়েছিল তার উল্টোটা দেখা যাওয়া আশ্চর্য নয়।

কেরলে কংগ্রেস ও সিপিআইএমের পারস্পরিক লড়াইয়ের ফল বলছে সে রাজ্য স্পষ্টই বিজেপির মেরুকরণ রাজনীতির বিরোধী। আর পশ্চিমবঙ্গের ফলাফলের গতির ইঙ্গিত তৃণমূল ফের সরকারে এলে রাজ্যে বিজেপির বিধায়করা কতদিনে দলত্যাগ করে ফের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আত্মসমর্পণ করবেন। বঙ্গ রাজনীতির অতি উল্লেখযোগ্য মোড় নিচ্ছে চলতি বিধানসভার ফলাফল।

নির্বাচনের আগে যেভাবে প্রধানমন্ত্রী মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সহ বিজেপির একগুচ্ছ মু়খ্যমন্ত্রী ও নেতাদের হিন্দি ভাষণের ছয়লাপ হয়েছিল রাজ্য তাতে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মনে ভয় এসেছে সেটাই টিএমসির পক্ষে গিয়েছে। সেই নিরিখে বিরোধী থাকা বামফ্রন্ট তথা সংযুক্ত মোর্চার পক্ষ ত্যাগ করে টিএমসির প্রতি আস্থা বেড়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের ২৯৪টি আসনের মধ্যে সবকটির গণনা চলছে। কড়া কোভিড বিধি মেনেই চলছে গণনা। রাজ্যে পরিবর্তন বা প্রত্যাবর্তনের দিকে দোদুল্যমান দুই শিবির টিএমসি ও বিজেপি। ফলাফলের প্রাথমিক গতিতে আরও একটি বিষয় উঠে আসতে চলেছে সেটি হলো ঘোড়া কেনাবেচা। যদি লড়াইয়ের এমন গতি থাকে তাহলে সেটি অবস্যম্ভাবী। গত কয়েকটি রাজ্যের বিধানসভা ভোটের পর দেদার কংগ্রেস বিধায়করা শিবির পাল্টেছেন। বিভিন্ন রাজ্যে কংগ্রেস জয়ী হলেও পরে সেখানে বিজেপি সরকার গড়েছে। পশ্চিমবঙ্গে উল্টো ছবি হতে পারে তেমনই হাওয়া ঘুরছে।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article