29 C
Kolkata
Sunday, May 16, 2021

করোনা ঠেকাতে ফের বন্ধ হল চিড়িয়াখানা – Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal’s Leading online Newspaper

Must read

কলকাতা : করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে বন্ধ করে দেওয়া হল রাজ্যের সমস্ত চিড়িয়াখানা ও অন্যান্য পশুশালা। দক্ষিণবঙ্গ থেকে উত্তরবঙ্গ সমস্ত স্থানেই এই নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে রাজ্যের প্রতিটি সাফারি পার্ক ও টাইগার রিজার্ভও। এমনটাই জানা গিয়েছে প্রশাসন সূত্রে।

বন দফতরের তরফে নির্দেশিকা জারি করে বলে দেওয়া হয়েছে যে , ‘বনদফতরের অধীনে যে অতিথিশালাগুলি আছে সেখানেও নতুন নির্দেশ জারি না হওয়া পর্যন্ত কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। যারা সম্প্রতি থাকার জন্য বুকিং করেছেন তাঁদের বুকিং বাতিল করতে হবে। এডভান্স নেওয়া হলে  ফেরত দেওয়ার হবে’।

রাজ্যের মুখ্য বনপাল (বন্যপ্রাণ) ভিকে যাদব বলেন, ‘সোমবার থেকেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকরী করা হল। করোনা  ঠেকাতেই রাজ্য সরকারের তরফে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। চিড়িয়াখানা ও সাফারি পার্কগুলি বন্ধ থাকবে, তেমনই বন দফতরের উদ্যানগুলি আছে , সেখানেও প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ ‌করা হবে। পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত আপাতত এই নির্দেশ জারি থাকবে’।

গত বছর করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে চিড়িয়াখানা বন্ধ রেখেছিল রাজ্য সরকার। বন্ধ ছিল সাফারি পার্ক ও বিভিন্ন জাতীয় উদ্যানগুলি।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৬৮ হাজার ১৪৭ জন। গত কয়েকদিন যেভাবে ঊর্ধ্বমুখী হচ্ছিল সংক্রমণ, এদিনের সংখ্যা তার চেয়ে কিছুটা কম। রবিবারের তুলনায় কমেছে একদিনে মৃত্যুর সংখ্যাও। সোমবারের রিপোর্ট বলছে মৃতের সংখ্যা সাড়ে তিন হাজারের নিচে। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৪১৭ জনের। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৯৯ লক্ষ ২৫ হাজার ৬০৪ জন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ লক্ষ ১৮ হাজার ৯৫৯। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনামুক্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৭৩২ জন। আক্রান্তের পাশাপাশি সুস্থতার সংখ্যা বাড়ায় খানিকটা স্বস্তি ফিরেছে। বর্তমানে দেশের মোট অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা ৩৪ লক্ষ ১৩ হাজার ৬৪২। দেশে এখনও পর্যন্ত সবমিলিয়ে সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ৬২ লক্ষ ৯৩হাজার ৩ জন। এখনও পর্যন্ত দেশে টিকা পেয়েছেন মোট ১৫ কোটি ৭১ লক্ষ ৯৮ হাজার ২০৭ জন।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article