31 C
Kolkata
Thursday, May 6, 2021

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ‘গুডবাই’ থিসারা পেরেরার-

Must read

কলম্বো: সোমবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন শ্রীলঙ্কার অলরাউন্ড ক্রিকেটার থিসারা পেরেরা। ২০১৪ বাংলাদেশের মাটিতে টি-২০ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য পেরেরা দ্বীপরাষ্ট্রের প্রাক্তন অধিনায়কও বটে। সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটে জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক বিদায়বেলায় জানিয়েছেন তরুণদের জায়গা ছেড়ে দিতেই তাঁর এই সিদ্ধান্ত। মাত্র ৩২ বছর বয়সেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ‘গুডবাই’ জানালেন পেরেরা।

২০০৯ আন্তর্জাতিক সার্কিটে আত্মপ্রকাশের পর দেশের হয়ে ৬টি টেস্ট, ১৬৬টি ওয়ান-ডে এবং ৮৪টি টি-২০ ম্যাচে অংশ নিয়েছেন পেরেরা। ১২ বছরের দীর্ঘ আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে ওয়ান-ডে ক্রিকেটেই সবচেয়ে সফল তিনি। ১৬৬ ওয়ান-ডে’তে পেরেরার সংগ্রহে রয়েছে ২,৩৩৮ রান এবং ১৩৫টি উইকেট। মারকুটে ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত এই সিংহলী ক্রিকেটার ৮৪টি টি-২০ ম্যাচে ১২০৪ রানের পাশাপাশি সংগ্রহ করেছেন ৫১টি উইকেট। ২০১৭ এই অলরাউন্ড ক্রিকেটার স্বল্প সময়ের জন্য অধিনায়ক পদে আসীন হয়েছিলেন। যদিও সেই অভিজ্ঞতা সুখের নয়।

তার আগে ২০১৪ বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত টি-২০ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার জয়ে উল্লেখযোগ্য অবদান ছিল পেরেরার। ঢাকায় টিম ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে মেগা ফাইনালে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছিল ১৪ বলে ২৩ রানের মূল্যবান ইনিংস। বিদায়বেলায় ক্রিকেটারের বিবৃতিতে উঠে এসেছে সেই কথা। পেরেরা জানিয়েছেন, ‘আমি গর্বিত যে শ্রীলঙ্কার হয়ে সাতটি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পেরেছি। একইসঙ্গে গর্বিত ২০১৪ ভারতকে হারিয়ে টি-২০ বিশ্বজয়ে অবদান রাখতে পেরে।’

একাধিক ক্ষেত্রে পেরেরার চওড়া ব্যাট বিপদ থেকে রক্ষা করেছে দ্বীপরাষ্ট্রকে। ২০১২ কেরিয়ারের শেষ টেস্ট ম্যাচটি খেলেছিলেন তিনি। তবে চলতি বছর মার্চে দেশের জার্সি গায়ে তাঁর শেষ ওয়ান-ডে ম্যাচে মাঠে নামা। কিন্তু ঘরের মাঠে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আসন্ন ওয়ান-ডে সিরিজের ঠিক প্রাক্কালে বুটজোড়া তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন হার্ড-হিটিং অলরাউন্ডার। তবে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন পেরেরা। উল্লেখ্য, ওয়ান-ডে ক্রিকেটে পেরেরার একমাত্র শতরানটি এসেছিল কিউয়ির দেশে। ২০১৯ মাউন্ট মাউনগানুইয়ে তাঁর ৭৪ বলে বিস্ফোরক ১৪০ রান জয় এনে দিয়েছিল শ্রীলঙ্কাকে।

দ্বীপরাষ্ট্রের ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে, ‘থিসারা একজন দুর্দান্ত অলরাউন্ডার ছিলেন। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের জন্য তাঁর অবদান অপরিসীম একইসঙ্গে দেশের গৌরবময় একাধিক অধ্যায়ের অমূল্য শরিক তিনি।’

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article