27.1 C
Kolkata
Thursday, May 13, 2021

আইপিএল স্থগিত হলেও সংক্রমণ জারি, করোনার কোপে সিএসকে ব্যাটিং কোচ হাসি-

Must read

নয়াদিল্লি: আইপিএলের জৈব নিরাপত্তা বলয়েও সংক্রমণে রাশ টানা যায়নি। একাধিক ক্রিকেটারের সংক্রমণের খবর আসতেই মঙ্গলবার সকালে তড়িঘড়ি ভিত্তিতে আইপিএলে স্থগিতাদেশ জারি করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। টুর্নামেন্টের এসওপি মেনে টুর্নামেন্টের অর্ধেকেরও বেশি দল আইসোলেশন এবং কঠোর কোয়ারেন্টাইনে প্রবেশ করতেই হুঁশ ফেরে বোর্ড এবং আইপিএল গভর্নিং বডির। কিন্তু স্থগিতাদেশের পরেও সংক্রমণ জারি রয়েছে।

সোমবার বোলিং কোচ লক্ষ্মীপতি বালাজির পর মঙ্গলবার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন চেন্নাই সুপার কিংসের বোলিং কোচ মাইকেল হাসি। টুর্নামেন্টে স্থগিতাদেশের পর আইপিএলের তরফ থেকেই প্রাক্তন অজি তারকা ব্যাটসম্যানের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর জানানো হয়েছে। মঙ্গলবারই হাসির রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। আইপিএলের এক সূত্র সংবাদসংস্থা পিটিআই’কে জানিয়েছে, ‘হাসির নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। পুনরায় সেটিকে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হলে সেটিও পজিটিভই আসে।’

উল্লেখ্য, সোমবার সর্বপ্রথম করোনা আঘাত হেনেছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স শিবিরে। মিস্ট্রি স্পিনার বরুণ চক্রবর্তী এবং মিডিয়াম পেসার সন্দীপ ওয়ারিয়র সর্বপ্রথম করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। অনতিপরেই চেন্নাই সুপার কিংস শিবিরে করোনা আক্রান্তের খবর মেলে। মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হন বোলিং কোচ লক্ষ্মীপতি বালাজি এবং টিম বাসের কর্মী। এই দু’টি দলকে এসওপি মেনে কঠোর কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয় তড়িঘড়ি। সংস্পর্শে আসা দলগুলিকে পাঠানো হয় আইসোলেশনে। সোমবার আরসিবির বিরুদ্ধে নাইটদের ম্যাচটি প্রাথমিকভাবে স্থগিত করা হয়।

মঙ্গলবারের ম্যাচও স্থগিত হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ছিল। এরইমধ্যে খবর আসে করোনা হানা দিয়েছে দিল্লি এবং সানরাইজার্স শিবিরে। আক্রান্ত হয়েছেন দিল্লি লেগ-স্পিনার অমিত মিশ্র এবং হায়দরাবাদ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ঋদ্ধিমান সাহা। ব্যস আর ঝুঁকি নেয়নি বিসিসিআই এবং আইপিএল গভর্নিং বডি। স্থগিতাদেশ নেমে আসে কোটিপতি লিগে। পরে জানা যায় ডাবল হেডারের সংখ্যা বাড়িয়ে এবং মুম্বইকে একটিমাত্র ভেন্যু হিসেবে ব্যবহার করে প্রাথমিকভাবে টুর্নামেন্ট শেষ করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু অবস্থা বেগতিক দেখে বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে আলোচনা করে টুর্নামেন্ট স্থগিতাদেশকেই শ্রেয় মনে করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

Source

- Advertisement -spot_img

More articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article